মিজানুর রহমান আজহারী Full Information

mizanur-rahman-azhari

মিজানুর রহমান আজহারী এক জন বাংলাদেশের জন প্রিয় বক্তা ।  তার কথা বলার ধরন এবং বুজানোর ধরন যুবক কাছে অনেক পছেন্দের হয়ে থাকে তিনি সাধারনত ঠাণ্ডা মেজাজ এবং ধিরে কথা কথা বলে থাকে। যেটা  যুবকদের  কাছে পছন্দের মধ্যে একটা কারণ । তা ছারাও তার বক্তবের মধ্যে আজে বাজে কথা থাকে না ।

মিজানুর রহমান আজহারী Photos

মিজানুর রহমান আজহারী ভিডিও ওয়াজ

মিজানুর রহমান আজহারী অডিও গজল

মিজানুর রহমান আজহারী অডিও ওয়াজ

মিজানুর রহমান আজহারী কত টাকা নেন

অবশ্যই শুনলে অবাক হবেন মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী প্রত্যেক মাহফিলের জন্য কত টাকা নেন। মিজানুর রহমান আজহারী সাধারণত প্রত্যেক মাহফিলের জন্য ৩ থেকে ৫ লাখ টাকা নিয়ে থাকেন।

 মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী হলেন তরুণদের একজন আইডল, ইসলামিক স্কলার মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী তিনি অল্প কয়েক দিনের মধ্যে  

সব শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠেছেন। বর্তমানে যে কজন ইসলামী চিন্তাবিদ রয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম হলো এই মিজানুর রহমান আজহারী। ১৯৯০ সালের ২৬ শে জানুয়ারি ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন।

 

মিজানুর রহমান তাঁর পৈতৃক নিবাস কুমিল্লার মুরাদনগরে পরমতলা গ্রামে তার বাবা একজন মাদ্রাসার শিক্ষক,  তার পরিবারে মা-বাবা রয়েছে, মিজানুর রহমান আজহারী ডেমরায় অবস্থিত দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসা থেকে ২০০৭ সালে 

দাখিল পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন, আলিম পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ ৫ লাভ করেন ২০০৭সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আয়োজিত সরকারের শিক্ষা বৃত্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে মিশরের 

আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয় আন্ডারগ্রাজুয়েট করার জন্য ডিপার্টমেন্ট কুরানিক সাইন্স থেকে ২০১২ সালের শতকরা ৮০ ভাগ সিজিপিএ উত্তীর্ণ হন পাঁচ বছর অতিবাহিত করার পর ২০১৩ সালে তিনি মালয়েশিয়ান গার্ডেন অফ ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে পোস্ট গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অফ কুরআন-সুন্নাহ থেকে ২০১৬সালের পোস্ট গ্রাজুয়েশন শেষ করে মাস্টার্স শেষ করে মালয়েশিয়ায়।

 

ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি করার সিদ্ধান্ত নেন ২০১৬ সালের মধ্যে বিশ্বাস করেন তিনি মিজানুর রহমান আজহারী মিশরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার কারণে তার নামের সাথে আজহারী যুক্ত হয়  মাওলানা মিজানুর 

রহমান আজহারী ২০০৪ সালের ২৯ জানুয়ারি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ তার একটা কন্যা সন্তান রয়েছে ইসলাম ধর্মের অনুশাসন মেনে চলে  নিজেকে কি ভাবে স্মার্ট ভাবে  উপস্থাপন করা যায় মিজানুর রহমান আজহারী কে দেখলেই বোঝা যায়।

 

তাকে খুবই পছন্দ করে তার তাফসির মাহফিলে যোগ দেখা যায় তিনি খুব পছন্দ করেন তাফসির মাহফিলের ভালো পথে চলার আহ্বান জানান অল্প সময়ে কুরআন হাদিসের আলোচনা করে অসংখ্য মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে।

এই মিজানুর রহমান গবেষণাধর্মী আলোচনা কারণে তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন তিনি বাংলা আরবি ইংরেজি ভাষায় খুবই দক্ষ যে কারণে বিভিন্ন সমালোচনা বুঝতে পারে তিনি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করেছেন এবং বিভিন্ন সভা-সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছেন।

মিজানুর রহমান আজহারী স্ত্রী

Coming Soon ………..

মিজানুর রহমান আজহারী বাড়ি

মিজানুর রহমান তাঁর পৈতৃক নিবাস কুমিল্লার মুরাদনগরে পরমতলা গ্রামে।

মিজানুর রহমান আজহারী শিক্ষাগত যোগ্যতা

মিজানুর রহমান আজহারীর সাধারণত প্রথম থেকেই অনেক জ্ঞানী  তিনি 2004  সালে দাখিল ও 2006 সালে আলিম পাশ করেন তিনি উভয় পরীক্ষায় বাংলাদেশ শিক্ষা বোর্ড মেধা তালিকায় শীর্ষ স্থান অধিকার করেন 2007 সালে মিশরের ইসলামিক ফাউন্ডেশন আজহারী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম স্থান অধিকার করেন এবং মালায়শিয়া থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।

মিজানুর রহমান আজহারী গজল

মিজানুর রহমান আজহারী তার বক্তব্যের মাঝে মাঝে সে কিছু কিছু গজল বলে থাকে এবং সে তার প্রথম জীবন শুরু করেন গজল  এবং কিরাত দিয়ে।তার কন্ঠ এবং কথা বলার ধরন সবার কাছে খুবই পছন্দের এবং তার কন্ঠ খুবই আকর্ষনীয় সে অনেকগুলো গজল বলেছেন তার মধ্যে কিছু গজল সংগ্রহ করা হয়েছে আমি লিংক দিয়ে দিচ্ছি আপনারা চাইলে গজল গুলো ডাউনলোড করে নিজের কাছে সংগ্রহ করতে পারেন আবার এখান থেকেও শুনতে পারেন।

মিজানুর রহমান আজহারীর প্রাথমিক জীবন

মিজানুর রহমান আজহারী 2014 সালে 29 শে জানুয়ারি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তার দুটি কন্যা সন্তান আছে।

ব্যক্তিগত জীবন

মিজানুর রহমান ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি বৈবাহিক সম্পর্কে আবদ্ধ হন। তার দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

শিক্ষাজীবন

মিজানুর রহমান আজহারীর শিক্ষাজীবন

ইসলামী চিন্তাবিদ ও জনপ্রিয় সুবক্তা ডঃ মিজানুর রহমান আজহারী সম্পর্কে চলুন অনেকদিন আগের ছোট্ট একটি ঘটনা জেনে নেয়া যায় বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম তার একটি কথাই বলেছিলেন খোদার বক্ষে লাথি মারি। 

তখনকার সময়ে কাঠমোল্লারা কাজী নজরুলকে নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান মিটিং মিছিল শুরু করেছিল কারণ কাঠমোল্লাদের ভাষা বোঝার মত জ্ঞান ছিল না পরবর্তীতে কবি আলেম-ওলামাদের নিয়ে বসে ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন আমাদের কোনো খতা নেই।

আমাদের আছে আল্লাহর আল্লাহর কোনো পক্ষ নেই যাদের আছে তাদের পক্ষ আছে আর ওই সব বানোয়াট খোদার বক্ষে লাথি মারি বর্তমান সময়ে কাঠমোল্লারা আবার এসেছে সিক্স প্যাক এর সমালোচনা করতে সময়ের সাথে সাথে সব 

দেশে চলমান রয়েছে সেটা বোঝার জ্ঞানটুকুও কাঠমোল্লাদের নেই আধুনিক যুগের সমাজ শব্দ হিসেবে তরুণরা বাচ্চার মা বাবাকে ডাকার ক্ষেত্রে যেমন থাকে তেমনি বর্তমানে সুঠাম দেহ কেও এর পরিবর্তে সিক্স প্যাক বলা হয়। 

আমার এই কথাগুলো বলার কারণ হচ্ছে কিছুদিন আগেই আজহারী হুজুর তার একটি ইসলামী বক্তব্য নবীজিকে সিক্স প্যাক এর অধিকারী বলেছিলেন এই কারণে কাফের বলতেও দ্বিধা বোধ করেননি কিন্তু বলতে চান দেহের অধিকারী 

কে বোঝাতে চেয়েছিলেন শিক্ষিত হুজুরকে যেসব প্রশ্ন তুলেছেন তাদের বেশিরভাগই পড়াশোনার দিক থেকে আজহারী হুজুরের থেকে বহুগুণ পিছিয়ে আজহারী হুজুরের শিক্ষাগত যোগ্যতা জ্ঞানচর্চার উচ্চতা জানলে অবাক হবেন। 

আপনিও তাই আপনাদের সকলের উদ্দেশ্যে আমাদের আজকের জন্য তুলে এনেছি আজহারী হুজুরের শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ আরো কিছু অজানা তথ্য মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী কুমিল্লা জন্মগ্রহণ করেন 2004 সালের দাখিল পরীক্ষায় জিপিএ 5 পেয়ে উত্তীর্ণ হন 2006 সালে আলিম পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ 5 বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের জায়গা করে নেন 2007 সালে 

ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত সরকারের শিক্ষা বৃত্তি পরীক্ষায় তিনি হাজার হাজার কমিও আলিয়া মাদ্রাসার ছাত্রদের মধ্যে বরাবরের মতো প্রথম স্থান অধিকার করে মিশরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্ডারগ্রাজুয়েট করার জন্য মিশরে গমন করেন

সেখান থেকে তিনি ডিপার্টমেন্ট অফ 2012 সালে শতাংশ 35 বছর শিক্ষা জীবন অতিবাহিত করার পর মালয়েশিয়ার ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে পোস্ট গ্রাজুয়েশন এবং পিএইচডি করার সিদ্ধান্ত নেন 2013 সালে তিনি মালয়েশিয়া গমন করেন উক্ত 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট থেকে তিনি 2016 সালের মধ্যে পোস্ট গ্রাজুয়েশন শেষ করে নিয়েছিল 3.82 তারপর তিনি একই 

বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি হিসেবে মনোনীত হন তিনি বর্তমানে গবেষণা করেছেন উল্লেখ্য এবং পিএইচডি গবেষণার মাধ্যমে ইংরেজি এতো ভালো ভালো রেজাল্ট করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি কতটা মেধাবী ছাত্র ছিলেন 

বাংলাদেশের মত প্রশ্ন ফাঁস কিংবা জালিয়াতির বিষয়টি কেবল মাত্র এদেশে সম্ভব অন্য কোন দেশের নয় অন্য দিকে তিনি আইইএলটিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে 97.5 করেছেন আর স্পিকিং 107.5 করেছেন এমন উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত 

হয়ে তিনি এদেশে ইসলাম প্রচারের কাজ শুরু করেছেন তিনি ইসলামকে তরুণ প্রজন্মের কাছে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করছেন 

যে মানুষটি তাকে নিয়ে তামাশা করছেন কিছু মুখোশধারী কাঠমোল্লা বাংলাদেশের কিছু ভন্ড হুজুর মাজার পূজারী স্বার্থন্বেষী দালাল চক্র এবং তারা আমাদের প্রিয় মিজানুর রহমান আজহারী কে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে তবে তাতে খুব একটা লাভ হচ্ছে না এ দেশের যুবসমাজ ঠিকই তার মূল্যায়ন করছে অন্যদিকে আজহারী হুজুর 

ব্যক্তিগতভাবেও একজন বড় মনের মানুষ নিজের বেশিরভাগ টাকায় তিনি ইসলাম প্রচারে খরচ করে থাকেন প্রতিনিয়ত সুন্দর সুন্দর বয়ান দিয়ে তিনি চেষ্টা করছেন যুব সমাজকে ধ্বংসের মুখ থেকে রক্ষা করে ইসলামের পথে ফিরিয়ে আনতে 

তিনি সবসময় বলিষ্ঠ কণ্ঠে বিরোধিতা করেছেন সকল অন্যায় এবং অবিচারের এমন একজনের পিছনে লেগেছে শত শত কাঠমোল্লা থেকে শুরু করে ইসলামবিরোধী লোকেরা ইসলাম প্রচার করতে গিয়ে এমন বাধার সম্মুখীন হওয়া যায় 

কিন্তু নতুন কিছু নয় এই ব্যাপারটা সৃষ্টিলগ্ন থেকেই শুরু হয়েছে ইসলাম প্রচার করতে গিয়ে অনেকেই এরকম শত বাধার সম্মুখীন হয়েছেন আমাদের সকলের দোয়া ও শুভকামনা রইল এমন সকল ধরনের বাধা উপেক্ষা করে 

এগিয়ে যাবে মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী এটাই আমাদের কামনা ।

কর্মজীবন

মিজানুর রহমান আজহারী 2010 সালে ইসলামিক গজল ও কেরাত দিয়ে তার কর্মজীবন বা ইসলাম ধর্ম প্রচারণা শুরু করেন । পরে তিনি বাংলাদেশে একটি চ্যানেল এটিএন বাংলা টিভির একটি ইসলামিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন । মিজানুর রহমান আজহারী 2015 সালের শুরুর দিকে প্রথম ওয়াজ মাহফিল নিয়ে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি ইসলাম ও সুন্দর জীবন শিরোনামের একটি অনুষ্ঠান করেছেন বৈশাখী টেলিভিশনে।

জনপ্রিয়তা

বাংলাদেশের মিজানুর রহমানের জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া তাকে বাংলাদেশের প্রায় যুব পছন্দ করে।তিনি ইসলাম ধর্ম অনুসারী এবং ইসলাম ধর্ম মেনে চলে কোরআন ও হাদিসের বিষয়গুলো সহজ-সরলভাবে বুঝিয়ে থাকে তিনি খুবই অল্প সময়ের মধ্যে মুসলিম বিশ্ব তরুণ সম্প্রদায়ের কাছে খুবই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন তার মাহফিলে বেশিরভাগ তরুণদের উপস্থিতি বেশি হয়ে থাকে ।তরুণদের পাশাপাশি তাকে প্রায় সকল বয়সে মানুষ খুবই পছন্দ করে থাকে।

বই

মিজানুর রহমান আজহারী দুইটি বই প্রকাশ করেছেন একটি বই তিনি 2021 সালে এবং এবং দ্বিতীয় বইটি তিনি 2022 সালে প্রকাশ করেন।মিজানুর রহমান আজহারির প্রথম বই নাম ম্যাসেজ:  এই বইটি তিনি 2021 সালে প্রকাশ করেন এখানে আধুনিক মানের দিনের ছোঁয়া আছে। তার দ্বিতীয় বইয়ের নামঃ আহ্বান: আধুনিক মননে আলোর পরশ তিনি এই বইটি 2022 সালে প্রকাশিত করেছিলেন।

সম্মাননা

মিজানুর রহমান আজহারী বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে আল-আজহার বৃত্তি পেয়েছেন তিনি এই ভিত্তিতে 2007 সালে পেয়েছেন এবং সে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। 

 ইসলামিক ফাউন্ডেশন হল গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান যেটি ইসলামের আদর্শ ও মূল্যবোধ প্রচার করে এবং সে সম্পর্কিত কার্যক্রম পরিচালনা করে।ফাউন্ডেশনটির প্রধান কার্যালয় ঢাকায় অবস্থিত, যেটি ৭টি বিভাগীয় কার্যালয়, ৬৪টি জেলা কার্যালয়, ৭টি ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং ২৯ টি ইসলামিক প্রচারণা কেন্দ্রের সহায়তায় কার্যক্রমসমূহ বাস্তবায়ন করে। ফাউন্ডেশনটির মহাপরিচালক হলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী।এবং তিনি মিশরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক বৃত্তি পেয়েছেন তিনি ২০০৮ সালে এই ভিত্তিটি পান এবং সেই জন্যই তার নামের সাথে আজহারী শব্দটি যুক্ত হয়েছেন ।

আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয় বা জামিয়াতুল আজহার হলো মিশনে অবস্থিত মিশরের মধ্যে এটি একটি বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় এটি 970 972 সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এখানে কোরান বা বিস্তারিতভাবে ইসলামিক আইন শিক্ষা গ্রহণ করা হয় বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত আছে যুক্তিবিদ্যা ব্যাকরণ ইত্যাদি ।এটা মিশরের প্রাচীনতম ডিগ্রী গ্রান্টিং বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৬১ সালে অতিরিক্ত অধর্মীয় বিষয়ের তার পাঠ্যক্রমের যোগ করা হয়।

সমালোচনা

তার বক্তব্য শুনে অনেক যুবক অনেক ব্যক্তি যারা কিনা পাপের পথ থেকে সরে এসেছে তার বক্তব্যের মধ্যে একটি মাধুর্যতা কাজ করে 2020 সালের জানুয়ারি মাসে ভারত থেকে 12 জন হিন্দু অবৈধ বাংলাদেশে এসে তার হাত ধরে মুসলমান হয়েছেন এছাড়াও আরও অনেকে তার তারা মুসলমান হয়েছেন এবং ইসলামের প্রতি একটি বিশ্বাস জন্মাতে পেরেছেন আর যারা মুসলমান আছেন তাদের বিশ্বাস আরো শক্ত হয়েছেন।  বাংলাদেশের দেশ বিরোধী বক্তব্যের অভিযোগ এনে বিভিন্ন স্থানে তার মাহফিল এক বা একাধিক বার নিষিদ্ধ হয়েছে । বাংলাদেশের সংসদ ভবনের দেশ বিরোধী বক্তব্য এই ধরনের মন্তব্য করা হয়েছে। এবং তাকে   বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামীর প্রোডাক্ট” বলে অভিহিত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মন্তব্য করেন।

Sharing Is Caring:

Leave a Comment